কেবল খাশোগজিই নয়, আরও এক সাংবাদিককে হত্যা করেছে সৌদি সরকার

কেবল খাশোগজিই নয়, আরও এক সাংবাদিককে হত্যা করেছে সৌদি সরকার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :

সৌদি নাগরিক সাংবাদিক জামাল খাশোগজিকে হত্যার পেছনে সৌদি যুবরাজ মুহাম্মদ বিন সালমানের প্রত্যক্ষ মদদের বিষয়টি বিশ্ববাসীর কাছে পরিস্কার হলেও খাশোগজির মতো সৌদিয়ান আরেক সাংবাদিককে হত্যার বিষয়টি সবার আড়ালেই থেকে গেছে। তুর্কি বিন আব্দুল আজিজ জাসের নামক ভিন্ন মতাবলম্বী ওই সাংবাদিককে সৌদি পুলিশ হেফাজতে হত্যা করা হয়।

ব্রিটিশ পত্রিকা ডেইলি মেট্রো এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, ২০১৮ সালের মার্চ মাসে ভিন্নমতাবলম্বীর সাংবাদিক তুর্কি বিন আব্দুল আজিজ জাসেরকে আটক করা হয়। মানবাধিকার লঙ্ঘনে সৌদি সরকার ও রাজপরিবারের ভূমিকার কথা জাসের তার টুইটার অ্যাকাউন্টে তুলে ধরতেন।

টুইটারের একটি ফেইক আইডি থেকে জাসের সম্পর্কে তথ্য ফাঁস করে দেয়া হয় এবং ২০১৮ সালের নভেম্বর মাসে বন্দী অবস্থায় তাঁকে হত্যা করা হয়। টুইটারের দুবাই অফিস থেকে সৌদি কর্তৃপক্ষ জাসের সম্পর্কে তথ্য পায় এবং এরপরই তাকে আটক করে।

সূত্রের তথ্য মতে- ‘ভিন্ন মতাবলম্বী অথবা সমালোচকদের জন্য টুইটার এখন বিপজ্জনক ও অনিরাপদ একটি সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে পরিণত হয়েছে। সবাই এখন ঝুঁকি এবং চাপের মুখেই কথা বলেন। সৌদি আরবের নাগরিকদের টুইটার অ্যাকাউন্টের ওপরে গুপ্তচরবৃত্তি করা হয়। আমরা টুইটার ব্যবহারকারীরা এখন আর মোটেই নিরাপদ নই।’

সৌদি যুবরাজ মুহাম্মাদ বিন সালমানের সাবেক উপদেষ্টা সাউদ আল-কাহতানি একটি সাইবার গুপ্তচর চক্র গড়ে তোলেন এবং তারাই টুইটারের দুবাই অফিসের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। সৌদি আরবের প্রখ্যাত সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যার ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগ ওঠার পর কাহানিকে উপদেষ্টার পদ থেকে সরিয়ে দেয়া হয়।