‘গুজব’কে হারাম ফতোয়া দিয়েছে জর্ডানের ইফতা বিভাগ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

গতকাল বুধবার জর্ডানের এক ইফতা বিভাগ গুজব ছড়ানোকে হারাম বলে ফতোয়া জারি করেছে। হাদিসের আলোকেও গুজব তথা মিথ্যা বলা কবিরা গোনাহের শামিল।

গুজব ছড়ানোকে হারাম ঘোষণা করে ইফতা বিভাগ থেকে বলা হয়েছে, ‘যে কোনো ধরণের গুজব ছড়ানো ইসলামে হারাম। এর মাধ্যমে অনেক সময় নিরীহ মানুষ নির্যাতিত হয়ে আসছে, তাই ইসলামে গুজবের স্থান নেই। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন বিষয়ে মুহূর্তেই গুজব ছড়িয়ে পড়ছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের কল্যাণে এ গুজবে মানুষ আতংকিত হয়ে সার্বিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। যা ইসলাম কোনভাবে সমর্থন করে না।

ফতোয়ায় আরও বলা হয়, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম মানুষের যোগাযোগ সহজ করেছে ঠিক, কিন্তু এর খারাপ দিকগুলো থেকেও সবার সচেতন থাকা জরুরি। সে কারণে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অপব্যবহার, গুজব ছড়িয়ে দেয়া, মানুষের নামে অপমানকর স্ট্যাটাস দেয়া, মানুষের সম্মান নষ্ট করা একেবারেই অনৈতিক। খারাপ কথা ও অবৈধ ছবি কিংবা ভিডিও শেয়ার করা হারাম। এসব থেকে সবার বিরত থাকতে হবে।

ইসলামিক সেবা সংস্থা পিআর ও আন্তর্জাতিক সহযোগিতা সংস্থা জর্ডানের বিভাগীয় পরিচালক হাসান আবু আরকুব জর্ডান টাইমসকে জানান, গুজবের বিষয়টি গত দুই মাসের মধ্যে সবচেয়ে বেশি আলোচিত হয়েছে। কেননা বিশ্বব্যাপী সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে শুধু গুজব আর গুজব ছড়িয়েই চলছে কিছু মানুষ।

এ ফতোয়ার পর পক্ষে-বিপক্ষে অনেক মন্তব্য এসেছে অনলাইনে। অনেকে এ ফতোয়াকে সুন্দর একটি ফতোয়া বলে হারামের পক্ষে যুক্তি দিয়েছেন।

বিজ্ঞাপন
আগের সংবাদভারতের লোকসভায় আজ উত্থাপিত হচ্ছে তিন তালাক বিল
পরবর্তি সংবাদগরুর নাম করে খুনখারাপি অবিলম্বে বন্ধ হোক : নুসরাত জাহান