ফজর নামাজ পড়তে যাওয়া মুসল্লীকে অপহরণ করে পুরুষাঙ্গ কর্তন

ফজর নামাজ পড়তে যাওয়া মুসল্লীকে অপহরণ করে পুরুষাঙ্গ কর্তন

ফাতেহ ডেস্ক :

ফজরের নামাজ পড়তে মসজিদে যাওয়া এক মুসল্লীকে অপহরণ করে হত্যার চেষ্টা করেছে দুর্বত্তরা। এ সময় তারা তার পুরুষাঙ্গ শরীর থেকে সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন করে ফেলে। সোমবার (১৮ নভেম্বর) তিনি রামু উপজেলার কচ্ছপিয়া ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে।

এরপর সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে লালু বিবি নামে এক কিষাণী নিজ প্রয়োজনে অন্যত্র যাওয়ার পথে মনিরের গোঙানি শুনতে পেয়ে চিৎকার করে ওঠে। তা শুনে লোকজন এগিয়ে এসে মনিরকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

মুমূর্ষ এ মুসল্লির নাম মনির আহমদ (৪৮)। তার পিতার নাম গোলাম কাদের। তিনি রামু উপজেলার কচ্ছপিয়া ইউনিয়নের তুলাতলী গ্রামের বাসিন্দা।

মনির আহমদের কন্যা ১০ শ্রেণির ছাত্রী নাসরিন জাহান এ্যামি গণমাধ্যমকে জানান,সে প্রতিদিনের ন্যায় ভোর সকালে পরীক্ষা উপলক্ষ্যে পড়তে বসে পড়ার টেবিলে। তার মা নূরতাজ বেগম স্থানীয় তুলাতলী জামে মসজিদে নামাজ পড়তে যাবার জন্য তার বাবাকে ঘুম থেকে ডেকে দেন। অজু করে মসজিদে যাওয়ার পথে গোদা জাফরের টেক নামক এলাকা থেকে মূখে প্ল্যাষ্টার চেপে কন্ঠরোধ করে অপরহরণ করে স্বশস্ত্র একদল অপহরণকারী। দূর্বত্তরা ঘটনাস্থলের উত্তর দিকের জঙ্গলার্কীণ প্রায় সোয়া কিলোমিটার দূরে নিয়ে নজিরের ঘোনায় হত্যার চেষ্ঠা করে মনিরকে।

গণমাধ্যমকে মনির আহমদের স্বজন নাপিতের সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পরিচালনা কমিটির সভাপতি সরওয়ার কামাল জানান, তারা এখনও মামলা করেননি।

গতকাল রাতে নাইক্ষ্যংছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল খায়ের বলেছেন, এ ব্যাপারে তিনি অভিযোগ পেয়েছেন।