বুড়িগঙ্গা ভয়াবহ লঞ্চ দুর্ঘটনায় মৃত বেড়ে ৩৬

ফাতেহ ডেস্ক:

রাজধানীর শ্যামবাজার এলাকায় বুড়িগঙ্গা নদীতে লঞ্চডুবির ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৩৬ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধার কাজে নিয়োজিত ফায়ার সার্ভিস সূত্র এ তথ্য জানায়।

নিহতদের মধ্যে আট নারী ও তিন শিশু রয়েছে। ডুবে যাওয়া লঞ্চটিতে এক শ’র বেশি যাত্রী ছিল। তবে বিআইডব্লিউটিএ’র যুগ্ম-পরিচালক একে এম আরিফ উদ্দিন জানিয়েছেন এ পর্যন্ত ৩২ জনের লাশ উদ্ধার হয়েছে। এ ঘটনায় তাদের পক্ষ থেকে তিন সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে।

সোমবার সকাল সাড়ে ৯টার দিকে বুড়িগঙ্গা নদীর ফরাশগঞ্জ ঘাট বরাবর মাঝ নদীতে ময়ূর-২ নামে একটি বড় লঞ্চের ধাক্কায় মর্নিং বার্ড ডুবে যায়। ঘটনার পরপরই নৌবাহিনী, ফায়ার সার্ভিস, কোস্টগার্ড ও বিআইডব্লিউউটিএ উদ্ধার তৎপরতা চালায়।

এখনও অনেকে নিখোঁজ রয়েছেন বলে ধারণা করছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা।

দুর্ঘটনায় নিহতরা হলেন, সত্যরঞ্জন (৬৫), মিজানুর (৩২), সাইদুল (৬২), সুফিয়া বেগম (৫০), মনিরুজ্জামান (৪২), সূবর্ণা আক্তার (২৮), মুক্তা (১২), গোলাম হোসেন ভূঈয়া (৫০), আবজাল শেখ (৪৮), বিউটি (৩৮), ময়না (৩৫), আমির হোসেন (৫৫), মো: নাইম (১৭), শাহাদাৎ (৪৪), শামমীম বেপারী (৪৭), মিল্লাত (৩৫), আবু তাহের (৫৮), দিদার হোসেন (৪৫), হাফেজা খাতুন (৩৮), সুমন তালুকদার (৩৫), আয়শা বেগম (৩৫), হাসিনা রহমান (৪০), আলম বেপারী (৩৮), মোসা. মারুফা (২৮), শহিদুর হোসেন (৪১), তালহা (২), ইসমাইল শরীফ (৩৫), তামিম ও সাইদুল ইসলাম (৪২)। বাকি ছয়জনের পরিচয় শনাক্ত করা যায়নি।

লঞ্চডুবির ঘটনায় নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব (উন্নয়ন ও পিপিপি সেল) মো. রফিকুল ইসলাম খানকে প্রধান করে পাঁচ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে মন্ত্রণালয়।

দুর্ঘটনার পরপরই ঘটনাস্থল পরিদর্শনে আসেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, ফায়ার সার্ভিসের মহাপরিচালক (ডিজি) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সাজ্জাদ হোসাইন, বিআইডব্লিউটিএর চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেক ও ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার মারুফ হোসেন সরদার।

ঘটনাস্থল পরিদর্শনে এসে নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, এটি কোন দূর্ঘটনা নয়, বিষয়টি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড বলে মনে হয়েছে। আমাদের মন্ত্রণালয় থেকে ইতিমধ্যে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছ। কমিটি আগামী ৩ কর্মদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেবে। এ ঘটনায় যারা জড়িত তাদের অবশ্যই বিচারের আওতায় আনা হবে।

ফায়ার সার্ভিসের মহাপরিচালক (ডিজি) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল সাজ্জাদ হোসাইন বলেন, এ পর্যন্ত ৩৬ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। নিখোঁজদের উদ্ধারে তৎপরতা চালানো হচ্ছে। অনেক দুর্ঘটনায়ই উৎসুক জনতার ভিড় হয়ে যায়। এখানেও খুব ভিড়। আমি বোট নিয়ে ঘটনাস্থলে যাচ্ছিলাম। তখন আমার বোটেও মানুষজন উঠে গিয়েছিলেন যাওয়ার জন্য। বোটটি প্রায় ডুবে যাচ্ছিল তখন। আমি অনুরোধ করব, এই মর্মান্তিক ঘটনা নিয়ে ভিড় না করতে।

-এ