অবরুদ্ধ কাশ্মীর নিয়ে কথা বলায় তুরস্ক-মালয়েশিয়ার ওপর মোদি সরকারের রোষানল

অবরুদ্ধ কাশ্মীর নিয়ে কথা বলায় তুরস্ক-মালয়েশিয়ার ওপর মোদি সরকারের রোষানল

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

অবরুদ্ধ কাশ্মীর নিয়ে ভারতীয় নীতির সমালোচনা করায় মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশ তুরস্ক ও মালয়েশিয়া ভারতের মোদি সরকারের রোষানলে পড়েছে। তুরস্ক থেকে বেশ কিছু পণ্য আমদানি বন্ধ এবং মালয়েশিয়া থেকে পাম অয়েলের পর এবার তেল ও গ্যাসসহ অন্যান্য পণ্য আমদানির ক্ষেত্রেও নিষেধাজ্ঞা আরোপের পরিকল্পনা করছে ভারত।

ভারতের সরকারি কর্মকর্তাদের বরাতে বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, ইতোমধ্যে মালয়েশিয়া থেকে পামওয়েল আমদানি বন্ধ করেছে বিশ্বের বৃহত্তম ভোজ্য তেলের ক্রেতা ভারত। মালয়েশিয়ার পরিবর্তে অন্য কোনো দেশ থেকে পামওয়েল আমদানি করতে স্থানীয় ব্যবসায়ীদের নির্দেশনাও দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ভারতের দুজন সরকারি কর্মকর্তা রয়টার্সকে জানিয়েছেন, পাম অয়েলের পর মালয়েশিয়া থেকে পেট্রোলিয়াম, অ্যালুমিনিয়াম, তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাস (এলপিজি), কম্পিউটার যন্ত্রাংশ ও মাইক্রোপ্রসেসর আমদানিতেও নিষেধাজ্ঞা আরোপের পরিকল্পনা করছে নয়াদিল্লি।

ভারতের ওই দুই সরকারি কর্মকর্তার একজন জানান, মালয়েশিয়া ছাড়াও তুরস্ক থেকে তেল ও ইস্পাতজাত পণ্য আমদানি বন্ধের পরিকল্পনাও করছে মোদি সরকার। অপরজন বলেন, ‘মালয়েশিয়া ও তুরস্ক (কাশ্মীর ইস্যুতে) যে মন্তব্য করেছে তা সরকার ভালোভাবে নেয়নি। তাই উভয় দেশ থেকে আমদানির ওপর বিধিনিষেধ আরোপ হবে।’

তবে এ বিষয়ে নিশ্চিত হতে রয়টার্স ইমেইলে ভারতের বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের মন্তব্য জানতে চাইলেও তারা এর কোনো জবাব দেয়নি। তবে কাশ্মীর নিয়ে মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ এই দুই দেশের মন্তব্যের পর মোদি নেতৃত্বাধীন বিজেপি সরকারের মালয়েশিয়া ও তুরস্কের সঙ্গে বাণিজ্য সম্পর্ক সীমিত করার পথেই হাঁটছে।

সম্প্রতি মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী ড. মাহাথির মোহাম্মদ বলেছেন, ভারত জম্মু-কাশ্মীরে সামরিক আগ্রাসন চালিয়ে ওই এলাকা দখল করে নিচ্ছে। এছাড়া, ‘কাশ্মীরিরা দৃশ্যত অবরুদ্ধ’ বলে সম্প্রতি মন্তব্য করেন তুর্কি প্রেসিডেন্ট রজব তাইয়্যেব এরদোগান। এরপর থেকেই দুই দেশের সঙ্গে ভারতের টানাপোড়েন শুরু হয়।

গত আগস্টে ভারতের জবর দখলে থাকা জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করে মোদি সরকার। তখন থেকেই আটক করা হয় স্থানীয় র্শীষ নেতাদের, বন্ধ করে দেয়া হয় মোবাইলসহ সবধরনের যোগাযোগ ব্যবস্থা। তবে সম্প্রতি ভারতের সুপ্রিম কোর্ট কাশ্মীরের ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন থাকাকে অবৈধ বলে রুল জারি করেছে।