আর্মেনিয়ার যুদ্ধাপরাধ নিয়ে প্রতিবেদন প্রকাশ করবে তুরস্ক

আন্তরজাতিক ডেস্ক:

নাগার্নো-কারাবাখে সদ্য সমাপ্ত হওয়া ছয় সপ্তাহের যুদ্ধে আর্মেনিয়া কতৃক সংগঠিত যুদ্ধাপরাধ নিয়ে বিস্তারিত প্রতিবেদন প্রকাশ করবে তুরস্ক। এই রিপোর্ট তুরস্কের সংশিষ্ট মন্ত্রণালয় ও বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে পাঠানো হবে।

তুরস্কের প্রধান ন্যায়পাল সেরেফ মালকোক মঙ্গলবার এ তথ্য জানিয়েছেন। খবর ইয়েনি শাফাক।

তুর্কি সংবাদ সংস্থা আনাদোলু এজেন্সিকে তিনি বলেন, যুদ্ধক্ষেত্র থেকে দূরবর্তী বেসামরিক এলাকায় হামলা চালানো মানবতা বিরোধী অপরাধ। এটা মানবাধিকার বিষয়ে জেনেভা কনভেনশন ও ইউরোপীয় কনভেনশনের মৌলিক অধিকারেরও বিরোধী। তারা আর্মেনিয়ার হামলায় ক্ষতিগ্রস্থ আজারবাইজানের বেসামরিক এলাকাগুলো পরিদর্শন করেছেন। এছাড়া অধিকৃত অঞ্চলে আর্মেনিয়রা যেসব হামলা চালিয়েছে সেগুলোও পরিদর্শন করা হবে।

মালকোক আরো বলেন, প্রতিবেদনে কিভাবে নিষিদ্ধ অস্ত্র ও বোমা ব্যবহার করা হয়েছে তা উল্লেখ করা হবে। একই সাথে স্কুল, ধর্মীয় স্থান ও বাসস্থানে হামলার বিস্তারিত প্রকাশ করা হবে। এটা আন্তর্জাতিক বিচারের ক্ষেত্রে দলিল হিসেবে কাজ করবে। তারা মসজিদকে শুকরের খামারে পরিণত করেছে। তারা মুসলিমদের কবরস্থান ধ্বংস করেছে।

উল্লেখ্য, আর্মেনিয়ার দখলকৃত নাগার্নো-কারাবাখ উচ্চ কারাবাখ নামেও পরিচিত। যা মূলত আজারবাইজানের অঞ্চল। গত ২৭ সেপ্টেম্বর আর্মেনিয়া যুদ্ধ শুরু করলে তা ১০ নভেম্বর রাশিয়ার মধ্যস্থতায় যুদ্ধবিরতির চুক্তিতে সম্মত হয় আর্মেনিয়া ও আজারবাইজান। চুক্তিটি মূলত আজারবাইজানের জয়ের দলিল হিসেবে দেখা হচ্ছে। চুক্তির ফলে আজারবাইজানের এলাকাগুলো আর্মেনিয়া ফিরিয়ে দিচ্ছে।

৪৪ দিনের এই যুদ্ধে এরই মধ্যে ৩০০ এর মতো এলাকা নিজেদের দখলে নেয় আজারবাইজান।

বিজ্ঞাপন