ইসলামী চিন্তাবিদ শায়েখ মুহাম্মাদ ইমারাহ আর নেই

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

বিখ্যাত ইসলামী চিন্তাবিদ শায়েখ মুহাম্মাদ ইমারাহ তিন সপ্তাহের অসুস্থতার পর ২৮ ফে্রেুয়ারী, শুক্রবার ৮৯ বছর বয়সে ইন্তেকাল করেন। এবং শনিবার জোহর নামাজের পর  ‘মসজিদুল হামদ’ এ তাঁর জানাযা অনুষ্ঠিত হয়। জানাযায় আযহারের উর্ধতন কর্মকর্তারাসহ অসংখ্য মানুষ অংশগ্রহন করেন।  খবর আলজাজিরা

মিসরের কুফরুশ শায়খে ১৯৩১ সালে জন্মগ্রহনকারী মরহুম সম্পর্কে তাঁর সন্তান খালিদ ইমারাহ ফেসবুক পোস্টে জানান, “আমার পিতা কোন কষ্ট ছাড়াই তার ছোট পরিবারের সকলের উপস্থিতিতে ইন্তেকাল করেছেন। তিনি আমার মা,  সকল সন্তান, নাতীনাতনী ও শুভানুধ্যায়ীদের জন্য দোয়া করেন। ইন্তেকালের সময় তিনি সকলের প্রতি সন্তুষ্ট ছিলেন। সকলকে ক্ষমা করেছেন। এমনকি যারা তাকে বিব্রত করেছে অথবা জুলুম করেছে তাদেরকেও তিনি ক্ষমা করেছেন। তিনি কারো প্রতি অন্তরে কষ্ট নিয়ে বিদায় নেননি।”

ইমারাহ আল আযহার বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণাপরিষদ ও সিনিয়র স্কলার অথরিটির সদস্য ছিলেন। মিসরের মার্কসীয় চিন্তার বিপরীত মেরুতে অবস্থান গ্রহনকারী হিসেবে তিনি পরিচিত। আধুনিক বিভিন্ন সংশয়ের জবাব দিতে তিনি ছিলেন মিসরীয় সমাজে অতুলনীয় ব্যক্তি।

তার ছয় দশকের লেখনীর সংখ্যা ২৪০ এর মতো।  ‘ইসলামের মার্কসীয় ব্যাখ্যা’  ‘ইসলাম ও ভবিষ্যত’ ‘ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ও জাতীয়তাবাদী তত্ত্ব’ অন্যতম।

তাঁর মৃত্যুতে আল আযহার শোক প্রকাশ করে উম্মতের ‘ফাকীদ’ বলে অভিহিত করেন।

উল্লেখ্য, তিনি মিসরের সাবেক স্বৈরশাসক হোসনী মোবারক বিরোধী বিপ্লবে সমর্থন দেন। এবং মিসরের ইতিহাসে প্রথম গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত মুরসির অপসারণকে বেআইনি বলে অভিহিত করেন।

বিজ্ঞাপন
আগের সংবাদপ্যারোলে মুক্তির বিষয়ে খালেদা জিয়াকে রাজি করাতে পারছেন না স্বজনরা
পরবর্তি সংবাদকয়েক ঘন্টায় ১৮ হাজার শরণার্থীর ইউরোপ গমন: গ্রীস সীমান্তে শরণার্থী ও নিরাপত্তাবাহিনীর সংঘর্ষ