কাশ্মীরে দখলদার বাহিনীর ওপর হামলা চালাতে প্রস্তুত জইশ-ই মুহাম্মাদের শতাধিক গেরিলা যোদ্ধা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

কাশ্মীরের স্বাধীনতাকামী সংগঠন জইশ-ই মুহাম্মদ-এর একশো’রও অধিক সদস্যের সমন্বয়ে একটি গেরিলা বাহিনী প্রস্তত করা হয়েছে। বাহিনীটি যেকোনো সময় হামলা করতে পারে ভারতীয় দখলদারদের ওপর। আফগান ও পশতুন এসব যোদ্ধা এখন নিয়ন্ত্রণ রেখার বিভিন্ন পয়েন্টে অবস্থান করছে। শুক্রবার গোয়েন্দাদের বরাত দিয়ে এমন তথ্য দিয়েছে ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। খবর ইকোনমিক টাইমস ও এনডিটিভি’র।

খবরে বলা হয়, গেরিলা বাহিনী যে কোনো সময় কাশ্মীরে বড় ধরনের হামলা চালাতে পারে। চলতি মাসের ১৯ ও ২০ তারিখে পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের ভাওয়ালপুরে জয়েশ-ই-মোহাম্মদের (জেইএম) পরপর দুই গোপন বৈঠকে এ পরিকল্পনা চূড়ান্ত করা হয়েছে।

জেইএম প্রদান মাওলানা মাসউদ আজহারের ভাই মুফতি রাউফ আজগরের সভাপতিত্বে ওই বৈঠক হয়। বৈঠকের সিদ্ধান্ত, মুফতি রাউফ নিজেই কাশ্মীরে হামলা পরিচালনা করবেন।

জয়েশ-ই-মোহাম্মদ সীমান্তে হামলার জন্য আফগান ও পাঠান যোদ্ধাদের সমন্বয়ে গঠিত উচ্চ প্রশিক্ষিত একটি দলকে মোতায়েন করেছে বলে গোয়েন্দারা তথ্য দিয়েছেন। তাদের সঙ্গে যোগ হয়েছে পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর প্রশিক্ষিত একটি দল। গোয়েন্দারা আরও জানান, নিয়ন্ত্রণ রেখায় সহিংসতা অব্যাহত রেখে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের মনোযোগ ধরে রাখতে মরিয়া হয়ে চেষ্টা চালাচ্ছে পাকিস্তান।

গোয়েন্দারা আরও জানিয়েছেন, ‘গেরিলারা ছোট ছোট দলে ভাগ হয়ে কাশ্মীরে বড় ধরনের হামলা চালাবে। শুধু উপত্যকাতেই নয়, দিল্লিসহ ভারতের অন্য বড় শহরগুলোতেও নাশকতা সৃষ্টির চেষ্টা করতে পারে।’