ডেলিভারি বয় ফাঁদে ফেলে ৬৬ নারীকে ধর্ষণ

ফাতেহ ডেস্ক:

অনলাইনে কেনাকাটার এক ডেলিভারি বয়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে, অন্তত ৬৬ জন নারীকে ধর্ষণ করেছেন তিনি। ভারতের পশ্চিমবঙ্গের হুগলিতে এই ঘটনা ঘটেছে।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকার খবরে জানা যায়, অভিযুক্ত বিশাল বর্মাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। একটি অনলাইন বিপণির ডেলিভারি বয় তিনি।

পণ্য পৌঁছে দেওয়ার পর ফিডব্যাক নেওয়ার নামে নারীদের ফোন নম্বর সংগ্রহ করতেন বিশাল। তারপর নানা কৌশলে তাদের সঙ্গে বন্ধুত্ব তৈরি করতেন।

এরপর বিভিন্ন সময়ে ভিডিও কল করে নানা মুহূর্তের ছবির স্ক্রিনশট জমিয়ে রাখতেন তিনি। সুযোগ বুঝে সেই সব ছবি দেখিয়ে নারীদের ব্ল্যাকমেল করে ধর্ষণ করতেন এ তরুণ।

গত শনিবার রাতে সুমন নামে এক বন্ধুসহ বিশালকে গ্রেফতার করে পুলিশ। রোববার আদালতে তোলা হলে বিচারক তাদের ৫ দিন পুলিশ হেফাজতে রাখার নির্দেশ দেন। সম্প্রতি চুঁচুড়ার এক গৃহবধূর অভিযোগের ভিত্তিতে বিশালের ধর্ষণের ঘটনা জানতে পারে পুলিশ।

ওই নারীর অভিযোগ, ফাঁদে ফেলে বিশাল তাকেও ধর্ষণ করে। আগ্নেয়াস্ত্র দেখিয়ে তার গয়নাও হাতিয়ে নেয় সে। অভিযোগকারীর দাবি, বিশাল সেই সময় তাকে জানায় যে, তিনি তার ৬৬তম ‘শিকার’।

গত শনিবার রাতে চুঁচুড়া থানার পুলিশ ব্যান্ডেলের কেওটার ত্রিকোণ পার্কে অভিযান চালায়। বিশালের বাড়িতে ঢুকে তাকে এক নারীর সঙ্গে দেখতে পায় পুলিশ।

পুলিশ জানায়, ওই নারীকেও বিশাল একইভাবে ভয় দেখিয়ে শ্লীলতাহানি করেছে। বিশালের মোবাইলে এবং বেশ কিছু মাইক্রোচিপে অসংখ্য নারীর ছবি এবং ভিডিও পাওয়া যায়।

বিজ্ঞাপন