ধ্বংস হয়ে যাওয়া ঘরবাড়িতে ফিরছে গাজার মানুষেরা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

ইজরাইলি বাহিনীর বিমান হামলায় গাজা উপত্যকায় ফিলিস্তিনিদের শত শত ঘরবাড়ি ধ্বংস হয়ে গেছে। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরা এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, অন্তত এক হাজার পৃথক বাড়ি একেবারে ধ্বংস হয়ে গেছে।

আল-জাজিরার ওই প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, আরো সাত শতাধিক বাড়ির বেশিরভাগ অংশ ধ্বংস হয়েছে এবং অন্তত ১৪ হাজার ঘরবাড়ি কোনো না কোনোভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

এরই মধ্যে গাজায় ধ্বংস হয়ে যাওয়া ও ক্ষতিগ্রস্ত বাড়িগুলোতে ফিরে আসছে হাজার হাজার ফিলিস্তিনি। মূলত নিজেদের ঘরবাড়ির পরিস্থিতি দেখার জন্য তারা ছুটে আসছে।

টানা ১১ দিন যুদ্ধ চলার পর ইজরাইল ও হামাসের মধ্যে যুদ্ধবিরতি চুক্তি হয়। এর পর ফিলিস্তিনিরা স্বস্তি নিয়ে বাড়ির পথে রওনা হচ্ছে বলে আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলোর প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে। তবে বাড়ির অবস্থা যখন ধ্বংসস্তুপের মতো দেখছে তারা, অনেকেই কান্নায় ভেঙে পড়ছে।

গাজায় আল-জাজিরার প্রতিনিধি হ্যারি ফাউসেট বলেছেন, গাজায় গড়ে একটি বাড়িতে ছয় জনের বসবাস। সেখানে অন্তত ৮০ হাজার মানুষ নিজেদের বাড়ি একেবারে হারিয়েছেন কিংবা তাদের বাড়ির কিছু অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

৭০ বছর বয়সী নাজমি দাহদো বলেছেন,ইজরাইলি বিমান হামলায় তার বাড়ি একেবারে ধ্বংস হয়ে গেছে।

ইজরাইলি সাম্প্রতিক হামলায় গাজায় মোট মারা গেছে ২৪৮ জন। তাদের মধ্যে ৬৬ জনই শিশু। এছাড়া আহত হয়েছে আরো অন্তত ১৯০০ জন।

সূত্র: আল-জাজিরা

 

আগের সংবাদকারাবন্দী হেফাজতনেতার মৃত্যুর সুষ্ঠু তদন্ত দাবি বাবুনগরীর
পরবর্তি সংবাদবিমান বিধ্বস্ত হয়ে নাইজেরিয়ার সেনাপ্রধান নিহত