বিশ্বে করোনায় একদিনে ১৩ হাজার মৃত্যু, শনাক্ত ৬ লাখ ছাড়িয়ে

ফাতেহ ডেস্ক:

করোনাভাইরাসে মৃত্যুর মিছিল কিছুতেই থামছে না। কোনো কোনো দেশে করোনার ভ্যাকসিন প্রয়োগ হওয়া সত্ত্বেও মৃত্যু কমছে না। এরইমধ্যে বিশ্বে মৃতের সংখ্যা ছাড়িয়েছে মৃত্যুর সংখ্যা ছাড়িয়েছে ১৮ লাখ ৭৫ হাজার।। এ তথ্য ওয়ার্ল্ডোমিটারসের।

এ পর্যন্ত সংক্রমিত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৮ কোটি ৬৮ লাখ ছাড়িয়েছে।

গত একদিনে করোনায় নতুন শনাক্ত হয়েছেন ৬ লাখ ৮২ হাজার ২১৮ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ১৩ হাজার ৪৩ জনের।

মহামারির শুরু থেকে বিশ্বের সব দেশ ও অঞ্চলের করোনা সংক্রমণের হালনাগাদ তথ্য সংরক্ষণ করছে ওয়ার্ল্ডোমিটারস নামের একটি ওয়েবসাইট। তাদের সর্বশেষ তথ্য বলছে, বুধবার (৬ জানুয়ারি) সকাল পর্যন্ত বিশ্বে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৮ কোটি ৬৮ লাখ ৩২ হাজার ১৮ জন, মোট মারা গেছেন ১৮ লাখ ৭৫ হাজার ৪৫১ জন।

বিশ্বে করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ যুক্তরাষ্ট্র। যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ২ কোটি ১৫ লাখ ৭৮ হাজার ৬০৬। দেশটিতে করোনায় মারা গেছেন ৩ লাখ ৬৫ হাজার ৬২০ জন।

ক্ষতিগ্রস্ত দেশের তালিকায় ভারতের অবস্থান দ্বিতীয়। ভারতে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ১ কোটি ৩ লাখ ৭৫ হাজার ৪৭৮ জন। দেশটিতে করোনায় মারা গেছেন ১ লাখ ৫০ হাজার ১৫১ জন।

ব্রাজিল আছে তৃতীয় অবস্থানে। ব্রাজিলে করোনায় সংক্রমিত শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৭৮ লাখ ১২ হাজার ৭ জন। দেশটিতে করোনায় মারা গেছেন ১ লাখ ৯৭ হাজার ৭৭৭ জন।

তালিকায় রাশিয়ার অবস্থান চতুর্থ। ফ্রান্স পঞ্চম। যুক্তরাজ্য ষষ্ঠ। তুরস্ক সপ্তম। ইতালি অষ্টম। স্পেন নবম। জার্মানি দশম। তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান ২৭তম।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের তথ্য অনুযায়ী, গতকাল মঙ্গলবার (৫ জানুয়ারি) পর্যন্ত বাংলাদেশে মোট ৫ লাখ ১৭ হাজার ৯২০ জনের দেহে করোনার সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। গতকাল পর্যন্ত করোনায় মোট ৭ হাজার ৬৭০ জনের মৃত্যু হয়েছে।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। চীনে করোনায় প্রথম কোনো রোগীর মৃত্যু হয় গত বছরের ৯ জানুয়ারি। তবে তার ঘোষণা আসে ১১ জানুয়ারি।

গত বছরের ১৩ জানুয়ারি চীনের বাইরে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় থাইল্যান্ডে। পরে বিভিন্ন দেশে করোনা ছড়িয়ে পড়ে।

করোনার প্রাদুর্ভাবের পরিপ্রেক্ষিতে ৩০ জানুয়ারি বৈশ্বিক স্বাস্থ্য জরুরি অবস্থা ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। গত ২ ফেব্রুয়ারি চীনের বাইরে করোনায় প্রথম কোনো রোগীর মৃত্যুর ঘটনা ঘটে ফিলিপাইনে। ১১ ফেব্রুয়ারি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা করোনাভাইরাস থেকে সৃষ্ট রোগের নামকরণ করে ‘কোভিড-১৯’।

বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে করোনাভাইরাসের টিকা দেয়া শুরু করে যুক্তরাজ্য। তবে নতুন ধরনের করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ায় বিপাকে পড়েছে দেশটি। এরই মধ্যে কয়েকটি কোম্পানির টিকার অনুমোদন দিয়েছে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ। ইতোমধ্যে বেশ কয়েকটি দেশ টিকা প্রয়োগ শুরু করেছে। বাংলাদেশেও দ্রুত টিকা আনা হবে বলে জানিয়েছে সরকার।

বিজ্ঞাপন