মাগুরার প্রত্যন্ত গ্রামে নির্মাণাধীন মদের বার গুঁড়িয়ে দিলেন বিক্ষুব্ধ স্থানীয় জনতা

নিজস্ব প্রতিবেদক

মাগুরার প্রত্যন্ত গ্রামে নির্মাণাধীন একটি মদের বার গুঁড়িয়ে দিয়েছেন সচেতন ও ধর্মপ্রাণ স্থানীয় জনগণ। আজ শুক্রবার বাদ জুমা স্থানীয় মুসল্লিগণ নিজেদের এলাকায় মদ ও মাদকজাতীয় দ্রব্যের আড্ডাখানা গড়ার প্রতিবাদে মাগুরা সদরের মঘী এলাকায় মাগুরা-যশোর মহাসড়কের পাশে নির্মাণাধীন ওই মদের বার অভিমুখে মিছিল নিয়ে যান। মদের বারের কাছে পৌঁছুলে বিক্ষুব্ধ জনতা একসময় ভাঙচুর করে গুঁড়িয়ে দেন পুরো বারটি।

মিছিলে অংশ নেওয়া তরুণ জাবির ফাতেহ টোয়েন্টি ফোরকে জানিয়েছেন, স্থানীয় জনগণ আজ জুমার পর শান্তিপূর্ণভাবে প্রতিবাদ করতে চেয়েছিলেন, কিন্তু মিছিল নিয়ে মদের বারের সামনে গেলে মিছিলের নেতৃত্ব যারা দিচ্ছিলেন তারা বিক্ষুব্ধ জনতাকে আর নিয়ন্ত্রণ করতে পারেননি, জনতা একযোগে ভাঙচুর করে গুঁড়িয়ে দেন ওই বারটি।

জাবির আরও জানান, গুঁড়িয়ে দেওয়া মদের বারটি একসময় মাগুরা শহরে ছিল। এ বারকে কেন্দ্র করে মাগুরা শহরে মাদক ও মদের ব্যাপকতা বৃদ্ধি পাওয়ায় এবং তরুণ ও যুবকদের একটক শ্রেণি এই বারের প্রতি আসক্ত হওয়ায় শহরের সচেতন ও ধর্মপ্রাণ নেতৃস্থানীয়রা কিছু দিন আগে এটাকে শহর থেকে উচ্ছেদ করেন। শহর থেকে বিতাড়িত হবার পর বার কর্তৃপক্ষ সদর উপজেলার মঘী নামক প্রত্যন্ত গ্রামে মাগুরা-যশোর মহাসড়কের পাশে এই বারটি পুনরায় চালু করে।

গত মাস দুয়েক ধরে বার চালু হবার পর থেকেই মঘীর আপামর জনসাধারণ এর তীব্র বিরোধিতা ও প্রতিবাদ করে আসছিলেন। কিন্তু বার কর্তৃপক্ষ প্রভাবশালী হবার কারণে গ্রামবাসীর আপত্তি ও প্রতিবাদ সত্ত্বেও বারে চলে আসছিল মদ ও মাদকের রমরমা ব্যবসা।

অবশেষে স্থানীয় আপামর জনতা নিরুপায় ও বিরক্ত হয়ে আজ এ প্রতিবাদ মিছিলের ডাক দেন এবং এরই পরিণতিতে গুঁড়িয়ে দেওয়া মদের পুরো বারটি।