সরকারি ও রুশ বাহিনীর হামলায় সিরিয়ার ইদলিবে নিহত ২২

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

প্রেসিডেন্ট বাসসার আল আসাদের বাহিনী ও রুশ সামরিক বাহিনীর যৌথ বিমান হামলায় সিরিয়ার ইদলিব প্রদেশে অন্তত ২২ জন বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়েছেন। শুক্র ও শনিবার এইসব হামলা চালানো হয়। এর মধ্যে ইদলিবের উত্তরাঞ্চলে নিহত হন আট বেসামরিক, পূর্বাঞ্চলীয় কাফারইয়া শহরে এক নারী ও শিশুসহ তিন জন ও অন্যান্য অঞ্চলে নিহত আরো ১১ জন। স্থানীয় উদ্ধারকারী স্বেচ্ছাসেবক দল হোয়াইট হেলমেটসের বরাত দিয়ে এ খবর দিয়েছে আল জাজিরা।

খবরে বলা হয়, নিহতদের পাশাপাশি আরো ৪৫ জন আহত হয়েছেন বলে জানিয়েছে হোয়াইট হেলমেটস। শনিবার এক টুইটে একথা জানায় সংগঠনটি।

হোয়াইট হেলমেটস জানায়, শনিবার সকালে দিকে খান শেইখুন শহরে এক বিমান হামলায় অন্তত ছয় জনের মৃত্যু হয়। এর মধ্যে চার শিশু ও দুই নারী রয়েছে। তারা সবাই একই বাড়ির সদস্য।

এর আগের দিন ইদলিব ও হামা প্রদেশের বিভিন্ন অঞ্চলে একইধরনের বিমান হামলায় মারা যান অন্তত ১১ জন। এছাড়া, শুক্রবার আরিহায় ছয় জন, আল-নুমানে তিন জন, ইদলিবে একজন ও কাফর জিতায় একজন প্রাণ হারান। এইসব হামলায় মোট আহত হন অন্তত ৪৫ জন।

গত সপ্তাহে সিরিয়ান নেটওয়ার্ক ফর হিউম্যান রাইটস (এসএনএইচআর) বলেছে, উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে রুশ ও সিরিয় বাহিনীর হামলা শুরুর পর থেকে এখন পর্যন্ত অন্তত ৫৪৪ জন বেসামরিক নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে শিশুর সংখ্যা অন্তত ১৩০ জন। আহত হয়েছেন আরো ২ হাজার ১১৭ জন।