সৌদির পারমাণবিক স্বপ্নে মার্কিন বাঁধা

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও বলেছেন, ওয়াশিংটন রিয়াদকে  ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করা থেকে বিরত থাকতে আহবান করেছে। আন্তর্জাতিক আইন অনুযায়ী রিয়াদের এই অধিকার নেই। ওয়াশিংটন তেহরানের কাছে যে দাবী জানিয়েছিল, রিয়াদের কাছেও সেই একই দাবী জানিয়েছে।

ইসরাইল  ও সৌদির সামরিক পারমাণবিক প্রকল্প বিষয়ে  আলোচনার ইরানি দাবীর প্রেক্ষিতে মার্কিন কংগ্রেসে পম্পেও এই কথা বলেন।

‘সৌদি শান্তিপূর্ণ পারমাণবিক জ্বালানী প্রকল্পের কাজের ইচ্ছা প্রকাশ করেছে। আমরা তাদেরকে  ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করা থেকে বিরত থাকার নীতি মেনে চলতে বলেছি।’

সৌদি ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান ভিশন ২০৩০ এর অংশ হিসেবে তেলের ওপর নির্ভরতা কমানো ও পারমাণবিক স্থাপনা তৈরির প্রকল্প হাতে নিয়েছেন। তিনি আগেই হুশিয়ারি দিয়েছেন যে, ইরান পারমাণবিক বোমা উৎপাদনের সক্ষমতা অর্জন করলে সৌদি আরবও বসে থাকবেনা।

পর্যবেক্ষকদের মতে, আমেরিকা ইসরাইলের নিরাপত্তা রক্ষার জন্য মধ্যপ্রাচ্যের কোন রাষ্ট্রকে পারমাণবিক ক্ষমতা সম্পন্ন হতে দেবেনা। সৌদি ও ইরানের মধ্যে যে ছায়া যুদ্ধ আমেরিকা বাঁধিয়ে রেখেছে, তার মধ্য দিয়ে আপাতত কোন একজনকে প্রভাবশালী হয়ে উঠতেও বাঁধা দেবে ওয়াশিংটন।

আল জাজিরা

বিজ্ঞাপন
আগের সংবাদ‘মালয়েশিয়ান বিমান ধ্বংস রুশ ক্ষেপণাস্ত্রে’
পরবর্তি সংবাদউড়োজাহাজ যাত্রীর পায়ুপথে কোটি টাকার সোনার বার