সড়ক দুর্ঘটনায় তিন শিক্ষার্থী ও মাদরাসা-শিক্ষক নিহত

ফাতেহ ডেস্ক

আজ বৃহস্পতিবার রাজধানী ঢাকাসহ সিরাজগঞ্জ, নরসিংদী ও খুলনায় পৃথক চার সড়ক দুর্ঘটনায় তিন শিক্ষার্থী ও একজন মাদরাসা শিক্ষক নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও ৩ জন।

সিরাজগঞ্জের কামারখন্দে কাভার্ডভ্যানের চাপায় নিহত হন ধুকুরিয়া কারিগরি কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী হৃদয় হোসেন। আজ বৃহস্পতিবার সকাল ৭টার দিকে উপজেলার নির্মাণাধীন চারলেন সড়কের ভদ্রঘাট বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এরপর উত্তেজিত জনতা ও শিক্ষার্থীরা কাভার্ড ভ্যানটিতে আগুন ধরিয়ে দেয়।

প্রায় দেড়ঘণ্টা সিরাজগঞ্জ-নলকা আঞ্চলিক সড়ক অবরোধ করে রাখে তারা। আহত ২ পথচারীকে সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এদিকে নরসিংদীর বারৈচা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় কাভার্ড ভ্যান চাপায় হোসেন নগর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম শ্রেণির ছাত্র রাব্বি মিয়া নিহত ও একজন আহত হয়েছে। ভ্যানটি আটক করেছে হাইওয়ে পুলিশ।

আর খুলনার রূপসায় আনন্দনগর এলাকায় ট্রলির চাপায় প্রথম শ্রেণির ছাত্রী আঁখি নিহত হয়েছে। ঘটনার পর ট্রলি চালক মিলন শেখকে আটক করা হয়েছে।

এদিকে রাজধানীতে লরির ধাক্কায় এক মাদরাসা-শিক্ষক নিহত হয়েছেন। ভোর সোয়া ৪টার দিকে মিরপুরের কল্যাণপুর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত শিক্ষকের নাম আব্দুর রাজ্জাক। মিরপুর থানার উপ-পরিদর্শক মঞ্জুরুল ইসলাম জানান, ভোরে কল্যাণপুরে রাস্তা পার হচ্ছিলেন তিনি। এসময় দ্রুতগামী একটি তেলের লরি তাঁকে ধাক্কা দেয়। ঘটনাস্থলেই মারা যান আব্দুর রাজ্জাক।

পরে স্থানীয়রা তাঁর মরদেহ উদ্ধার করে শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। ময়না তদন্তের জন্য মরদেহ সেখানকার মর্গে রাখা হয়েছে। নিহত আব্দুর রাজ্জাকের বাড়ি মেহেরপুর সদর এলাকায়।

বিজ্ঞাপন
আগের সংবাদপাকিস্তানে ইসলামবিদ্বেষী বক্তব্যের জেরে ছাত্রের হাতে শিক্ষক খুন
পরবর্তি সংবাদসুখী দেশের তালিকায় ১০ ধাপ পেছাল বাংলাদেশ