নানা শঙ্কা-সমস্যার পর অবশেষে শুরু হলো তুরাগ তীরের এবারের বিশ্ব ইজতেমা

বিশেষ প্রতিবেদক

বহু বাদ-বিবাদ আর সমস্যা-সংঘাতের পর টঙ্গীর তুরাগ নদীর তীরে অবশেষে শুরু হয়েছে এবারের বিশ্ব ইজতেমা। আজ বৃহস্পতিবার আসর নামাজের পর আম বয়ানের মাধ্যমে শুরু হয় ইজতেমা মূল কার্যক্রম।

তাবলিগের চলমান বিবাদের দু’পক্ষ আলাদাভাবে অংশ নিচ্ছে এবারের ইজতেমায়। চারদিনের ইজতেমার প্রথমার্ধের নেতৃত্বে থাকছেন আলেমদের অনুসারী শুরাপক্ষের তাবলিগিরা। ইজতেমায় আগত মুসল্লিদের অংশগ্রহণে ইতিমধ্যে টঙ্গী ময়দান কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে গেছে।

বুধবার রাত থেকেই দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে মুসল্লিদের আগমনে পূর্ণ হয়ে গেছে ইজতেমা ময়দান। শুরাপক্ষের ঘোষণামতে বৃহস্পতিবার বাদ ফজর বয়ান শুরু হওয়ার কথা থাকলেও সরকারের অনুরোধে আসরের পর থেকে কার্যক্রম শুরু করেছেন তারা।

ইজতেমার মাঠ থেকে ফাতেহের বিশেষ প্রতিনিধি জানান, মাঠ কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যাওয়ায় আগত সাথীরা সময় কাটাচ্ছেন মসজিদওয়ারী বয়ান ও ব্যক্তিগত তেলাওয়াত-জিকিরে।

প্রথম ধাপে শুরাপক্ষের অনুসারীরা পরিচালনা করবেন ইজতেমার কার্যক্রম। বৃহস্পতিবার থেকে শনিবার আসর পর্যন্ত ইজতেমার পরিচালনার দায়িত্বে থাকবেন তারা। ইতিমধ্যে বহির্বিশ্ব থেকে শুরাপন্থি মুরব্বীরা ইজতেমা ময়দানে পৌঁছেছেন।

বাদ মাগরিব বয়ান করেছেন ভারতের তাবলিগি মুরব্বি মাওলানা আহমদ লাট সাহেব।

শনিবার দুপুরে আখেরি মুনাজাত হবে এ অংশের।

সা’দ অনুসারীদের ইজতেমা ১৭ ফেব্রুয়ারি শুরু। রোববার ফজরের পর থেকে সা’দ অনুসারীরা অংশ নেবে ইজতেমায়। ১৭ ফেব্রুয়ারি বাদ ফজর বয়ানের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকতা শুরু করে ১৮ ফেব্রুয়ারি আখেরি মুনাজাতের মধ্যদিয়ে তাদের ইজতেমা শেষ হবার সরকারি সিদ্ধান্ত থাকলেও তারা বলে আসছেন আখেরি মুনাজাত তারা ১৯ ফেব্রুয়ারি জুহরের সময় করবেন।

এইচআর/