লালবাগ মাদরাসার বুখারী শরীফ খতম ও বিদায়ী অনুষ্ঠানে কান্নার রোল

মূফতী আল আমীন

গতকাল১৩.০৪.২০১৮ ইং রোজ শুক্রবার ঢাকার ঐতিহ্যবাহী দ্বীনি শিক্ষা বিদ্যাপীঠ.জামেয়া কোরআনিয়া আরাবিয়া লালবাগ মাদরাসার বুখারী শরীফ খতম উপলক্ষে এক মুবারক ওয়াজ ও দোয়ার মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

বিগত ছয় বছরের ন্যায় এবছরও লালবাগ জামেয়ার দীর্ঘ ২৭ বছরের খাদেম বাতিলের আতঙ্ক মুফতী ফজলুল হক আমিনী রহ. কে ছাড়াই এই মুবারক মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

প্রথম অধিবেশন. বাদ জুমা থেকে আসর পর্যন্ত লালবাগ জামেয়ার তলাবাগন কুরআন তেলাওয়াত ও হামদ নাত গেয়ে শ্রোতাদের মুগ্ধ করে রাখেন।

দ্বিতীয় অধিবেশন বাদ আসর পবিত্র কুরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে আরম্ভ হয়।
কুরআন তেলাওয়াতের পর লালবাগ জামেয়ার ঐতিহ্য ও ইতিহাস সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করেন লালবাগ জামেয়ার সম্মানিত মুহাদ্দীস হযরত মাওঃ মুফতী ফয়জুল্লাহ দাঃবাঃ

তিনি তার বক্তব্যে বলেন. লালবাগ জামেয়ার সূচনালগ্ন থেকে এখন পর্যন্ত কোন বাতিল কোন নাস্তিক কোন মুর্তাদ কোন খোদাদ্রোহীদের সাথে আপোষ করেনি। বাংলাদেশের প্রতিটি ইসলাম বিরোধী আন্দোলনে লালবাগ জামেয়া সূর্য সন্তানরা সামনে থেকে আন্দোলনের নেতৃত্ব দিয়েছেন।
লালবাগ জামেয়ার প্রতিষ্ঠাতা হযরত মাওঃ শামছুল হক ফরিদপুরী রহ. আইয়ুব খানের আমলে তার বিভিন্ন ইসলাম বিরোধী কর্মকাণ্ডের সরাসরি বিরোধিতা করেছেন।

হযরত হাফেজ্জী হুজুর রহ. তাওবার রাজনীতির মাধ্যমে এদেশের আপামর জনতার মনের গহিনে প্রবেশ করেছেন।
লালবাগ জামেয়ার সর্বশেষ আকাবীর মুজাহিদে মিল্লাত আল্লামা মুফতী ফজলুল হক আমিনী রহ. মৃতুর আগ পর্যন্ত সকল বাতিল নাস্তিক মুরতাদদের বিরুদ্ধে আন্দোলন করে গিয়েছেন। তার নেতৃত্বে তাসলিমা খেদাও আন্দোলন. বাবরী মসজিদ আন্দোলন. ফতোয়া বিরোধী রায়ের বিরুদ্ধে আন্দোলন. নারীনীতি শিক্ষানীতি ইত্যাদি আন্দোলন হয়েছে। প্রায় সব ঈমানী আন্দোলনে তিনি নেতৃত্ব দিয়েছেন। এবং আন্দোলনের কারণে তাকে একাধিক বার কারাগার বরন করতে হয়েছে।
এবং মৃতুর আগ পর্যন্ত তাকে গৃহবন্দী থাকতে হয়েছে
এবং গৃহবন্দী থাকাবস্থায় তিনি ইন্তেকাল করেছে। জামেয়ার মাহফিলে অসংখ্য মানুষের সমাগম হয়।

মুফতী ফয়জুল্লাহ তার বক্তৃতায় বলেন এখন পর্যন্ত লালবাগ জামেয়া সেই আন্দোলনের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রেখেছে। ইনশাআল্লাহ আগামীতেও লালবাগ জামেয়া সেই আন্দোলন অব্যাহত রাখবে।
মুফতী ফয়জুল্লাহ দাঃবাঃ এর বক্তৃতার পরপরই লালবাগ জামেয়ার এবছরের বিদায়ী ছাত্রদের মাথায় সম্মানসূচক পাগড়ী পড়িয়ে দেন লালবাগ জামেয়ার সকল আসাতিজায়ে কেরামগন।

পাগড়ী প্রদান শেষে বিদায়ী ছাত্রদের উদ্দেশ্যে গুরুত্বপূর্ণ তাকরীর পেশ করেন লালবাগ জামেয়ার প্রবীন মুহাদ্দীস আল্লামা হাবিবুর রহমান সাহেব (হাজী সাহেব হুজুর) দাঃবাঃ
তৃতীয় অধিবেশন বাদ মাগরীব পবিত্র কুরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে আরম্ভ হয়।
তেলাওয়াত করেন লালবাগ জামেয়ার উস্তাদ. লালবাগ শাহী মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম.উস্তাদুল কুররা হযরত মাওঃ ক্বারী আবু রায়হান সাহেব দাঃবাঃ
তেলাওয়াতের পর লালবাগ জামেয়ার বিদায়ী তারানা পরিবেশন করেন তাকমীল জামাতের বিদায়ী ছাত্র হাফেজ মাওলানা আব্দুর রহমান. হিফজ বিভাগ থেকে একজন ছাত্র পবিত্র কুরআন তেলাওয়াত করেন. এবং দাওরায়ে হাদীস বিভাগের তিনজন ছাত্র বুখারী শরীফের সর্বশেষ হাদীসটি তেলাওয়াত করেন।

সর্বশেষ এই হাদীসটির উপর গুরুত্বপূর্ণ তাকরীর ও আখেরী মুনাজাত পরিচালনা করেন লালবাগ জামেয়ার সদরুল মুদাররীস.উস্তাজুল আসাতিজা
হযরত মাওঃ আব্দুল হাই সাহেব দাঃবাঃ

হুজুর তার বয়ানে ছাত্রদের প্রতি গুরুত্বপূর্ণ নসিহত পেশ করেন ও ওলামায়ে কেরামের অবদান সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা পেশ করেন।

মূফতী আল আমীন
সাবেক লালবাগ জামেয়ার ছাত্র