দেওবন্দের নামে জাল বিজ্ঞপ্তি, চারদিকে ছি ছি, নিন্দার ঝড়

ফাতেহ২৪ ডেস্কঃ

২৮ জুলাই ২০১৮’ ঢাকার ওজাহাতী জোড়ের সিদ্ধান্তাবলী নিয়ে দারুল উলূম দেওবন্দকে জড়িয়ে যে বিভ্রান্তিমূলক খবর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার জন্য ষড়যন্ত্রের যে জাল বিস্তার করার অপচেষ্টা হয়েছিল সে ষড়যন্ত্রের গোমর ফাঁস হয়ে গেছে। উল্টো ষড়যন্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে চলছে তুলোধুনো।

দারুল উলূম দেওবন্দের প্যাড নকল করে, ওই দ্বীনি মারকাযের তিন শীর্ষ ব্যক্তিত্বের দস্তখত জাল করে ওই মিথ্যা বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছিল, ২৮ জুলাই ঢাকার ওজাহাতী জোড়ের সিদ্ধান্তের সঙ্গে দেওবন্দের অবস্থানের কোন মিল নেই। উপরন্তু বলা হয়েছিল,  সাদ সাহেবের রুজু দেওবন্দের পক্ষ থেকে গ্রহণ করা হয়েছে।

আসলে এ বিজ্ঞপ্তিটি ছিল ভয়ংকর মিথাচার।

২৮ জুলাইয়ের ওজাহাতী জোড়ের সিদ্ধান্তে দিল্লিতে অবস্থান নেয়া সাদ সাহেবের  অনুসরণ করা বর্জনীয় ও নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে এবং বাংলাদেশে মাওলানা সাদের অনুসারীদের অনুসরণ ত্যাগ করে হক্কানী আলেমদের মাশওয়ারায় যেসব মুরুব্বী কাজ করছেন তাঁদের নির্দেশনায়  দাওয়াত ও তাবলীগের কাজ এগিয়ে নেওয়ার কথা বলা হয়েছে।

দারুল উলূম দেওবন্দের প্যাড ও স্বাক্ষর জাল করে ওই বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে ২৮ জুলাই  ঢাকার ওজাহাতী জোড়ের সিদ্ধান্তাবলীকে চ্যালেঞ্জ জানানোর ছক সাজানো  হয়েছিল। আর এটা করা হয়েছিল ২৮ জুলাই রাতেই। সাদ সাহেবের সমর্থক ও  আলেমদের ব্যাপারে কুৎসারটনাকারী একটি পোর্টালে ওই জাল বিজ্ঞপ্তিটি প্রকাশ হয়। জালিয়াতিপুর্ন বিজ্ঞপ্তিটি কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে এবং নানামুখী বিভ্রান্তি সৃষ্টি করতে থাকে। কিন্তু দারুল উলূম দেওবন্দের শীর্ষ মুরুব্বীদের সাথে যোগাযোগ করা হলে পরের দিন ২৯ জুলাই তারা আবারো দিল্লির সাদ সাহেবের ভ্রান্তির বিষয়ে অনড় অবস্থানের কথা পুনর্ব্যক্ত করেন। এমনকি এ বিষয়ে নতুন আরেকটি বিজ্ঞপ্তিও প্রকাশ করেন। দেওবন্দ কর্তৃপক্ষ তাঁদের নামে ২৮ জুলাই ঢাকার ওজাহাতী জোড়ের সিদ্ধান্তাবলীকে অস্বীকার করে ছড়িয়ে দেয়া বিজ্ঞপ্তিটিকে ফ্রড ও জাল হিসাবে আখ্যা দেন।

জানা যায়, পরিকল্পিতভাবে দেওবন্দের নামে ফ্রড ও জাল এই বিজ্ঞপ্তি প্রচারের পেছনে এতাআতী তাবলীগী নেতাদের একটি অংশের সঙ্গে যোগ দিয়েছে দেশের একজন বহুল বিতর্কিত আলেমের অনুসারীরা। ওই বিতর্কিত আলেমের অনুসারীরা বিভ্রান্তি ছড়ানোর অসৎ উদ্দেশ্যে জাল, নকল এবং ফ্রড বিজ্ঞপ্তিটিকে তারই সম্পাদিত পোর্টালে ও অন্য কয়েকটি ফেসবুক আইডি থেকে ব্যাপকভাবে প্রচার করে। কিন্তু ২৯ জুলাই দেওবন্দ থেকে ওই জাল বিজ্ঞপ্তিটিকে ফ্রড হিসাবে আখ্যায়িত করার পর ওদের সব বিভ্রান্তি ও ষড়যন্ত্র চুপসে যায়। তাদের কেউ কেউ তার ওয়াল থেকে বিজ্ঞপ্তিটি মুছে ফেলতে বাধ্য হয়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেওবন্দের নামে জালিয়াতিতে যুক্ত এদেশের সাদ সাহেবের অনুগত লোকজন ও বিতর্কিত আলেমের অন্ধ অনুসারীদের বিরুদ্ধে তুলোধুনো চলছে। চারদিকে পড়ে গেছে ছি ছি

দেওবন্দের সর্বশেষ (২৯ জুলাই) এই বিজ্ঞপ্তির মধ্য দিয়ে আবারো পরিস্কার হয়েছে, দিল্লীর সাদ সাহেবের গোমরাহীর বিষয়ে দেওবন্দের অবস্থান অপরিবর্তিত। আর এতে করে ২৮ জুলাই ঢাকার ওজাহাতী জোড়ের সিদ্ধান্তাবলী সঠিক ও যথাযথ হিসেবে আবারো সাব্যস্ত ও প্রমাণিত হয়েছে। কোনো জাল জালিয়াতি করে বাংলাদেশের  উলামায়েকেরামের ইজমা’কে ধামাচাপা দেয়ার আর কোনো সুযোগ নেই।